বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করলেন নিউট্রন স্টার ব্ল্যাক হোলের অস্তিত্ব: রিপোর্ট

বিজ্ঞানীরা মনে করছেন এটি একটি ব্ল্যাক হোল

0
94

সম্প্রতি মহাকাশ বিজ্ঞানীদের একটি দল নাসা টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এমন একটি নক্ষত্রের ছবি তুললেন যেটিতে অনেকগুলি জড়বস্তু একত্রিত হয়ে একটি সন্নিবিষ্ট আকার গঠন করে।বিজ্ঞানীরা মনে করছেন এটি একটি ব্ল্যাক হোল।আবার অনেকের মতে এটি নিউট্রন স্টার হতে পারে।এটি আসলে কি সেটা নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে মতবিরোধ থাকলেও এটির সম্পর্ক কিছুদিন আগে ঘটা একটি মহাকাশ বিস্ফোরণের সঙ্গে রয়েছে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা।

গত 16 ই জুন 2018 হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের উপর নাসার গ্রহাণু টেলিস্কোপ আকাশে একটি ছোট কিন্তু অদ্ভুত বিস্ফোরণের ছবি তোলে।বিজ্ঞানীরা ঐ বিস্ফোরণটির নাম দেন AT2018cow। এই The Cow বিস্ফোরণটি ঘটেছিল CGCG137-068 ছায়াপথটির কাছাকাছি একটি জায়গায়। এরপর তিনদিন ধরে ‘The Cow’ মাঝেমধ্যে অনেক বিস্ফোরণ ঘটাতে থাকে ও কিছু মাসের মধ্যে অদৃশ্য হয়ে যায়।

Neil Gehral এর NuSTAR এবং অন্যান্য নাসা মিশনের তথ্য ব্যবহার করে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন যে The Cow ছিল একটি বিশাল বড় ব্ল্যাক হোল ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ লন্ডনের একজন এস্ট্রোফিজিক্সের প্রফেসর জানান যে The Cow খুবই কম সময়ের মধ্যে অনেক গুলি বস্তু জড়ো করে একটি ব্ল্যাকহোল গঠন করেছে।

বিজ্ঞানীদের আরেকটি দল মনে করছে এটি একটি সুপারনোভা। যা হল একটি স্টেলার বিস্ফোরণ। তারা মনে করছেন এটিই এই ব্ল্যাকহোলের উৎস।নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির একজন এস্ট্রোফিজিক্সের প্রফেসর রাফায়েল মারগুত্তি বলেন,” আমরা The Cow এর মধ্যে এমন কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য দেখেছি যেটা আমরা এর আগে অন্য কোন দ্রুত পরিবর্তনশীল বস্তুতে দেখিনি। “

মহাকাশবিদ্যার একটি জার্নালে বেরোনো রিপোর্ট অনুযায়ী The Cow থেকে বার হওয়া রশ্মিগুলি একটি সুপারনোভা গঠন করে এবং তার থেকে যে এক্স রে গুলি বেরিয়ে ছিল সেগুলি বিভিন্ন সুনিবিড় ভাবে থাকা জড় বস্তুর উপর পড়ে তাদের রেডিয়েশন তৈরি করছে এবং আলো উদ্ভূত করছে।

পড়ুন : নতুন বছরে বদলে যাবে হোয়াটসঅ্যাপ, দেখে নিন আসন্ন ১০ টি ফিচার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here