১০ দিনের মধ্যে ১০০০ স্টেশন পাবে বিনামূল্যে WiFi পরিষেবা

0
174

ভারতীয় রেলের সব স্টেশনগুলোই হাই স্পিড ইন্টারনেটের মাধ্যমে খুব শীঘ্রই ডিজিটাল হাবে পরিনিত হচ্ছে।এর ফলে প্রতিমাসে একসঙ্গে তিন কোটির ও বেশি মানুষ হাই স্পিড ইন্টারনেটের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।এই পরিষেবা দিতে রেলওয়্যারকে প্রতিমাসে ৯৫১০ টেরাবাইট ডেটা খরচ করতে হবে। সম্প্রতি রেলমন্ত্রর এক রিপোর্টে জানা গেছে, ৮৩১ টি স্টেশনে বিনামূল্যে ওয়াই ফাই প্রদান করে রেলওয়্যার বিশ্বের বৃহত্তম পাবলিক ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে পরিণত হয়েছে।

৫ বছরের এই রিপোর্ট প্রকাশ করার সময় রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়াল বলেন,’ ভারতীয় রেল ২০১৪ সালে দেওয়া তার কথা রেখেছে।আমরা দেশের আরো ৪০০০টির ও বেশি স্টেশনে বিনামূল্যে ওয়াই ফাই সংযোগের পরিকল্পনা করছি।’

এই পুরো ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবস্থার নেটওয়ার্কটি প্রদান করেছে মিনিরত্ন সেন্ট্রাল পি.এস.ইউ(পাবলিক সেক্টর আন্ডারটেকিং) এবং রেল মন্ত্রণালয়ের অধীন রেলটেল। তারা আগামী দশদিনের মধ্যেই প্রায় ১০০০ টি স্টেশন এই পরিষেবা প্রদান করবে বলে ঘোষণা করেছে । এই ফ্রি ওয়াইফাই পরিষেবার ব্যপারে বলতে গিয়ে রেলটেলের চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর পুনিত চাওলা বলেন,দিল্লি-আমবালা এবং আমবালা-চন্ডীগড় সেকশনে ৩৫টা স্টেশন রয়েছে।এই স্টেশনগুলোতে প্যাসেঞ্জাররা এবার থেকে হাই স্পিড ইন্টারনেটর সুবিধা ভোগ করবে।

প্রসঙ্গত রেলটেল, ব্যাঙ্গালোর-মাইসুরু সেকশনের ব্যাঙ্গালুরু সিটি, কেনগাড়ি, বিদাদি, রামানাগারম, চান্নাপাতনা, মাদুর, মান্দেয়া স্টেশনগুলিকে ইতিমধ্যেই ফ্রি ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক ব্যবস্থার মধ্যে নিয়ে এসেছে। পাশাপাশি, তারা জব্বালপুর-কাতনী সেকশনের ৯টি স্টেশন কেও এই পরিষেবা প্রদান করেছে।যেগুলি হলো জব্বালপুর, কাতনী, দেওরী, গোশালপুর, শিহোরা রোড, ডান্ডী, সালিমনাবাদ, নিওয়্যার এবং আধারতল।

রেলওয়ে অফিসিয়ালের মতানুযায়ী ব্যবহারকারীরা প্রথম ৩০ মিনিটের জন্য হাইস্পিড ইন্টারনেট পায় ,যা প্রায় ৪০ এমবিপিএস।এরপর এই স্পিড ২ এমবিপিএসে নেমে আসে।

পড়ুন : পাবলিক WiFi ব্যবহারের আগে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন, হ্যাক হতে পারে মোবাইল