এই প্রোডাক্টগুলো আর কিনতে পারবেন না অ্যামাজন বা ফ্লিপকার্ট থেকে, আদেশ দিল্লি হাইকোর্টের

0
377

গতকাল দিল্লি হাইকোর্ট অ্যামওয়ে, মোডিকেয়ার এবং ওরিফ্লেম এর বিউটি, হেলথ কেয়ার প্রোডাক্ট তাদের অনুমতি ছাড়া বিক্রির উপর নিষেধাজ্ঞা আনে। এই নিষেধাজ্ঞা গুলি লাগু হয় অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট এবং স্ন্যাপডিল এই তিনটি ই-বিপণন সংস্থার উপর।

তিনটি প্রস্তুতকারী সংস্থা দিল্লি হাইকোর্টে তাদের অভিযোগ পত্র দাখিল করে এই দাবি নিয়ে যে, তাদের তৈরি প্রোডাক্টগুলি ই-কমার্স সাইটগুলিতে তাদের নির্ধারিত দামের থেকে অনেক কম দামে বিক্রি করা হচ্ছে। এর ফলে তারা বেশ ভারী অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। এই দাবিকেই গুরুত্ব দিয়ে এদিন এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেন দিল্লি হাইকোর্টের প্রধান অন্তর্বর্তী বিচারপতি শ্রীমতি প্রতিভা সিং।

স্থানীয় কমিশনারদের দাখিল করা রিপোর্ট অনুযায়ী, 1MG এবং হেলথকার্ট সহ সমস্ত ই-বিবরণ সংস্থার ওয়্যারহাউজে হানা দিয়ে তারা লক্ষ্য করেছে যে, সেখানে আসল জিনিসগুলির পরিস্থিতি সত্যিই বদলে দেওয়া হয়। পাশাপাশি রিপোর্টে এও জানানো হয় যে, সর্বাধিক বিক্রয় মূল্য আরো বেশি করে দেওয়া ছাড়াও সেই সব ওষুধ এবং বিউটি প্রোডাক্ট এর নাম এবং প্রোডাক্ট কোড নিয়েও গরমিল করা হয়। এছাড়াও মেয়াদোত্তীর্ণ হেলথ প্রোডাক্টগুলিতে নতুন উৎপাদন তারিখ বসিয়ে সেগুলিকে আবার বিক্রি করা হয়।

অন্তর্বর্তী আদেশনামাটিতে জানানো হয়, সমস্ত ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রি করা এই ই-বিপণন সংস্থাগুলির সেই প্রোডাক্টের মান এবং শুদ্ধতা অবশ্যই যাচাই করে নেওয়া উচিত বিক্রির আগে। এই ই-বিপণন সাইটগুলি আসার পরে ছোটখাটো বিক্রেতাদের অত্যন্ত সুবিধা হয়েছে তাদের জিনিসপত্র বিক্রির। কিন্তু প্রোডাক্টের মান পর্যবেক্ষণ না করে জিনিস বিক্রি এই সাইট গুলিকে বন্ধ করতেই হবে।

আদেশনামায় এটাও জানানো হয়, যেভাবে এই সাইটগুলিতে অ্যামওয়ে, মোডিকেয়ার এবং ওরিফ্লেম এর মতো কোম্পানির মার্ক, লোগো, সিলমোহর প্রোডাক্টের ছবি ব্যবহার করা হয় তা একজন ক্রেতার পক্ষে যথেষ্ট বিভ্রান্তিকর। কারণ সেগুলিতে আসল বিক্রেতার নাম কখনোই বলা থাকে না সঠিকভাবে। একজন সাধারন ক্রেতার পক্ষে সেই প্রোডাক্টের আসল উৎস খুঁজে বের করা সত্যিই খুবই শক্ত।

বিচারপতি আরো যোগ করেন,” প্রথম মামলায় অভিযোগকারীদের অভিযোগগুলি, অর্থাৎ প্রোডাক্টগুলি অননুমোদিত বিক্রেতাদের থেকে কেনা, প্রোডাক্টে গরমিল থাকা, প্রোডাক্টের পরিস্থিতি পাল্টে, যাওয়া অনেক সময় প্রোডাক্টটিই পুরো পাল্টে যাওয়া সেগুলি সর্বৈব সত্য। “

কোর্ট জানায়, “উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলির ব্যবসা এবং তাদের তৈরি জিনিসপত্রের উপর তাদের অধিকার দুটি ই-কমার্স বিবরণ সংস্থাগুলির জন্য বড় মাত্রায় ক্ষতিগ্রস্ত ও ক্ষুন্ন হয়েছে। এবং উৎপাদনকারী সংস্থার পাশাপাশি এটি সাধারণ ক্রেতাদের জন্যেও অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এ কারণেই অভিযোগকারীরা একটি মামলা দায়ের করেছিল। এই কেসে ই-বিপণন সংস্থাগুলিকে অভিযোগকারী কোম্পানিগুলিকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। কোন রকমের অন্তর্বর্তী ছাড়ে এক্ষেত্রে কাজ করবে না।”

কোর্ট এও জানিয়েছে যে, এবার থেকে শুধুমাত্র সম্মতিপ্রাপ্ত ই-বিপনণ সংস্থাগুলিই অ্যামওয়ে, মোডিকেয়ার, এবং ওরিফ্লেমের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারবে তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। এছাড়াও যে কোম্পানিগুলি এই প্রোডাক্টগুলি বিক্রির অনুমতি পাবে তাদেরও কোর্ট আগে বিক্রেতার সম্পূর্ণ কন্টাক্ট ডিটেইল দিয়ে তারপর জিনিস বিক্রির আদেশ দিয়েছে।

পড়ুন : এই 5 ধরণের জিনিস 50% ছাড়ে পাওয়া যাবে Amazon Prime Day সেলে

প্রযুক্তির সাম্প্রতিক খবর আর রিভিউস জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা Whatsapp গ্রুপে যুক্ত হোন আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here