এবার থেকে ভারতী এয়ারটেল এবং ভোডাফোন আইডিয়া কাস্টমাররা আরো ভালো নেটওয়ার্ক কভারেজ এবং আরো দ্রুত 4জি স্পিড পেতে চলেছেন। একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, এই দুটি টেলিকম কোম্পানিই তাদের 2জি এবং 3জি স্পেকট্রামের ভারকে কমিয়ে 4জি স্পেকট্রামকে রিফার্ম করতে চলেছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি স্পেক্ট্রাম রিফার্মিং হলো এমন একটি পদ্ধতি যাতে বর্তমান ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে তাদের স্পেকট্রাম নিয়ে একসঙ্গে স্থাপন করে আবার অন্যান্য ব্যবহারকারীদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। কিছুদিন আগে ভারতী এয়ারটেলের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার গোপাল ভিত্তাল জানিয়েছিলেন যে তারা ভারতের দশটি শহরে তাদের 900 মেগাহার্টজের স্পেকট্রাম রিফার্ম করে সেগুলিকে ফোরজি সার্ভিসের জন্য পরিবর্তিত করেছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভারতী এয়ারটেল এ বছরের ডিসেম্বর মাসের শেষ দিকে তাদের 3জি সার্ভিস বন্ধ করে দিয়ে 2100 মেগাহার্টজ স্পেক্ট্রাম ব্যবহার করে সম্পূর্ণরূপে 4জি নেটওয়ার্কে চলে আসবে।

জুন 2020-তে ভোডাফোন আইডিয়া ও তাদের নেটওয়ার্ক ইন্টিগ্রেশনের কাজ শেষ করতে চলেছে-

ভোডাফোন আইডিয়ার তৎকালীন চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার বলেশ শর্মা জুলাই মাসের শেষের দিকে জানিয়েছিলেন যে তারাও ভারতের 7টি সার্কেলে 900 মেগাহার্টজ এবং 2100 মেগাহার্টজ স্পেক্ট্রামকে রিফার্ম করে 4জি নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহারযোগ্য করে তুলছে। তিনি আরও জানিয়েছিলেন, 2020 সালের জুন মাসের মধ্যে ভোডাফোন এবং আইডিয়ার ডুয়াল নেটওয়ার্ক ইন্টিগ্রেশনও শেষ হয়ে যাবে এবং ইন্টিগ্রেশনে স্পেক্ট্রাম রিফার্মিং একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এই ইন্টিগ্রেশন এয়ারটেল এবং ভোডাফোন আইডিয়া উভয়ের জন্যই লাভজনক হতে চলেছে।

এছাড়াও একজন অ্যানালিস্টের মতে এয়ারটেল এবং ভোডাফোন আইডিয়া 4জি নেটওয়ার্ক কোয়ালিটির ক্ষেত্রে রিলায়েন্স জিওকে পিছনে ফেলে দিতে পারে কারণ এই দুটি নেটওয়ার্কের কাছে মোট যতটা এয়ারওয়েভ আছে তা রিলায়েন্স জিও-র থেকে অনেক বেশি। আইসিআইসিআই সিকিউরিটিজের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী 2জি ও 3জি স্পেকট্রামের রিফার্মিংয়ের পর ভারতী এয়ারটেল এবং ভোডাফোন আইডিয়ার কাছে রিলায়েন্স জিও-র থেকে যথাক্রমে 28% এবং 33.1% শতাংশ বেশি 4জি ক্যারিয়ার থাকবে। একজন মানুষের ডেটা ব্যবহারের পরিমাণ আগামী দিনে কিছুটা বাড়তে চলেছে। বর্তমানে গড়ে একজন মানুষ এক মাসে 11.6 জিবি ডেটা ব্যবহার করে যেখানে তাকে মাসে 45 জিবি ডেটা দেওয়া হয়।

স্পেক্ট্রাম রিফার্মিং দুটি কোম্পানির জন্যই অত্যন্ত প্রয়োজনীয়-

বর্তমানে স্বাধীন স্পেক্ট্রামের মোট পরিমাণের মধ্যে ভোডাফোন আইডিয়া এবং ভারতী এয়ারটেলের মার্কেট শেয়ার যথাক্রমে 40% এবং 35%, যেখানে রিলায়েন্স জিওর মার্কেট শেয়ার 26%। আইসিআইসিআই সিকিউরিটিজের রিপোর্টে বলা হয়েছে 2জি এবং 3জি স্পেক্ট্রাম রিফার্মিং-র পর এই দুটি কোম্পানির 4জি হোল্ডিং যথাক্রমে 62% এবং 42.5%-এ পৌঁছোবে, যা তাদের ডেটা ক্যাপাসিটি বাড়াতেও সাহায্য করবে।
রিলায়েন্স জিও যদিও এখনও সবচেয়ে বেশি বেস স্টেশন নিয়ে ডেটা ক্যাপাসিটির ক্ষেত্রে সবার উপরে রয়েছে, ডেটা ব্যবহারের 59% মার্কেট শেয়ার নিয়ে। বর্তমানে রিলায়েন্স জিও নেটওয়ার্কে ডেটা ব্যবহারের পরিমাণ এয়ারটেল এবং ভোডাফোনের থেকে যথাক্রমে 2.6X এবং 3.2X বেশি। বিশেষজ্ঞদের মতে এই স্পেক্ট্রাম রিফার্মিং এই দুটি টেলিকম অপারেটরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় হতে চলেছে, তাদের ব্যবহারকারীদের ভালো সার্ভিস এবং নতুন 4জি কাস্টমার নিয়ে আসার ক্ষেত্রে।

Amazon প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

পড়ুন : 6 মাস পর্যন্ত ফ্রি ইন্টারনেট : লঞ্চ হলো Reliance Jio Fiber

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here