জিও, এয়ারটেল এবং ভোডাফোনের মতো ভারতের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম সংস্থাগুলি কলরেট বাড়ানোর ঘোষণা করার পর থেকেই বাজারে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। ট্যারিফের দাম বাড়ার কারণে সাধারণ মানুষকে সমস্যায় পড়তে হতে পারে। অন্যদিকে, বিশেষজ্ঞদের মতে এর ফলে টেলিকম কোম্পানিগুলো ব্যাপক উপকৃত হবে। এতো গেলো ভারতের টেলিকম মার্কেটের কথা, কিন্তু প্রতিবেশী দেশগুলোতে কল এবং ডেটার জন্য কত খরচ হয় তা কি জানেন? আসুন জেনে নিই মায়ানমার, পাকিস্তান, নেপাল, বাংলাদেশ ও শ্ৰীলংকার কলরেট কত।
মায়ানমার : 
টেলিকম কোম্পানি টেলিনর মায়ানমারে ১২ কিয়াত (Kyat) প্রতি মিনিট হিসাবে চার্জ করে। মায়ানমারের মুদ্রাকে ভারতের টাকার সাথে তুলনা করলে এক কিয়াত সমান ভারতের ০.০৪৭ পয়সা দাঁড়ায় । আবার মায়ানমারের গ্রাহকরা আলাদা ভাবে প্রতি এমবি হিসাবে চার্জ দেয় ১০ কিয়াত। এসএমএস এর জন্য এখানকার গ্রাহকদের থেকে ১৫ কিয়াত নেওয়া হয়।
পাকিস্তান :
আপনাকে জানিয়ে রাখি টেলিনর পাকিস্তানেও উপলব্ধ। পাকিস্তানের এক রুপি ভারতের ০.৪৬ পয়সার সমান। এখানে গ্রাহকদেরকে নয় জিবি ডেটা এবং অল ইন ওয়ান প্ল্যানের জন্য ৬০০ টাকা দিতে হয়। এছাড়াও, ব্যবহারকারীদের হোয়াটসঅ্যাপ এবং ফেসবুক ব্যবহারের জন্য আলাদাভাবে চার্জ করা হয়।
শ্ৰীলংকা :
ভারতের এয়ারটেল শ্রীলংকায় ও ব্যবসা করে। শ্রীলংকার এক রুপি ভারতের ০.৪৬ পয়সার সমান। শ্রীলংকার গ্রাহকরা ৯৮ টাকার প্ল্যানে আনলিমিটেড কলের সুযোগ পায়। এরসাথে তাদেরকে ১,০০০ এসএমএস ও ১০০এমবি ডেটা দেওয়া হয়। আবার ১১৯ টাকায় ১৪ দিনের জন্য ১.৬৫ জিবি ডেটা যায়।
নেপাল ও বাংলাদেশ :
নেপাল টেলিকম তার গ্রাহকদের এক জিবি ডেটা ১,১২৫ টাকার বিনিময়ে দিয়ে থাকে। এছাড়াও, গ্রাহকরা ১২৫ টাকায় ১০০ এমবি ডেটা পান। আবার এনসেল কোম্পানি গ্রাহকদের জন্য ৯,০০ থেকে ৩,০০০ টাকা পর্যন্ত প্ল্যান উপলব্ধ করেছে, যেখানে ১০ জিবি ডেটা দেওয়া হয়। অন্যদিকে বাংলাদেশে গ্রাহকদের ১৮৯-৪০০ টাকা বাংলালিংক এক জিবি থেকে পাঁচ জিবি পর্যন্ত ডেটা সুবিধা দেয় ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here