কিছুদিন আগেই সমস্ত টেলিকম কোম্পানি ঘোষণা করেছিল যে ১ ডিসেম্বর থেকে তাদের ট্যারিফ বাড়বে। তবে এই ঘোষণার পর ও আপনার যদি মনে হয় কোনো রাস্তা ঠিক বার করে কোম্পানিগুলো তাদের সিদ্ধান্ত বদলাবে তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। খোদ ভারতের টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি (ট্রাই) ট্যারিফ প্ল্যানকে সবচেয়ে কম মূল্যে উপলব্ধ করতে রাজি নয়। টেলিকম বিভাগ অর্থাৎ ডিওটি এর এক আধিকারিকের মতে তারা ন্যূনতম ট্যারিফ প্ল্যান নিয়ে কোনো আলোচনা করছে না।
তিনি আরও বলেছেন যে, জিও, এয়ারটেল, ভোডাফোন-আইডিয়া এবং বিএসএনএল আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে যে প্ল্যানের দাম বাড়ানোর ঘোষণা করেছে সেখানে তারা হস্তক্ষেপ করবে না । রিপোর্ট অনুযায়ী,  ভোডাফোন আইডিয়া এবং এয়ারটেলের প্ল্যানের মূল্য ২০-২৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে।
এদিকে সেলুলার অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন (COAI) থেকেও পরিষ্কার জানানো হয়েছে তারা ট্যারিফ প্ল্যানের সর্বনিন্ম মূল্য নির্ধারণ নিয়ে কোনো আলোচনা করছে না। বরং তাদের এইমুহূর্তে একমাত্র লক্ষ্য গ্রাহক প্রতি আয় বাড়ানো( ARPU)। গ্রাহক প্রতি আয় বাড়লে টেলিকম সেক্টরের হাল ফিরে আসবে বলে তাদের ধারণা। সেলুলার অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের ডিরেক্টর জেনারেল রাজন ম্যাথিউ বলেছেন যে প্ল্যানের দাম নির্ধারণ করা একটি জটিল সমস্যা এবং বর্তমানে আমরা ARPU বৃদ্ধিতে মনোনিবেশ করছি।
তিন বছরে রাজস্ব কমেছে ৪১ হাজার কোটি :
বুধবার টেলিকম মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ সংসদে বলেছেন মোবাইল সেবা সারা দেশে কমার কারণে তিন বছরে টেলিকম খাতের আয় প্রায় ৪১ হাজার কোটি টাকা কমেছে। প্রসাদ লোকসভায় এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ২০১৬-১৭ সালে টেলিকম খাতের মোট আয় ছিল যেখানে ২.৬৫ লক্ষ কোটি টাকা, তা এক বছর পরে বাড়ার বদলে কমে দাঁড়িয়েছিল ২.৪৬ লক্ষ কোটি টাকাতে। ২০১৮-১৯ এও আয় কমে এখন ২.২৪ লক্ষ কোটি টাকাতে ঠেকেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here