গত কয়েকমাস ধরে চরম দোলাচলের মধ্যে ভারতীয় টেলিকম সেক্টর। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে ভোডাফোন ভারত থেকে ব্যবসা সরাতে পারে বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছিল। যদিও পরে ভোডাফোন তাদের গ্রাহকদের আশস্ত করে জানায় এখনই ভারত ছাড়ার তাদের কোনো পরিকল্পনা নেই, তবে আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে প্ল্যানের দাম বাড়ানো হবে। এরপর এয়ারটেল, জিও ও বিএসএনএল ও একই ঘোষণা করে। কিন্তু দাম বাড়ানো ছাড়াও টেলিকম সেক্টরে আরেকটি বিষয় নিয়ে জোর চর্চা চলছে, আর তা হলো আইইউসি চার্জ । জিও ইতিমধ্যেই আইইউসি চার্জ হিসাবে গ্রাহকদের থেকে মিনিট পিছু ৬ পয়সা কাটছে, যা মোটেও ভালো ভাবে নেয়নি গ্রাহকরা। আর তা বুঝে ট্রাইকে বারবার আইইউসি চার্জকে শেষ করার আবেদন জানিয়েছে জিও । যদিও এয়ারটেল ও ভোডাফোন এর বিরোধিতা করে ট্রাইকে অনুরোধ করেছে অন্তত ৩ বছর পর্যন্ত এই চার্জ চালু রাখতে। আর এই অনুরোধ হয়তো কিছুটা হলেও রাখতে চলেছে ট্রাই।
আইইউসি চার্জ কি এবং কেন  :
প্রথমে আমাদেরকে জেনে নিতে হবে ইন্টারকানেক্ট ইউসেজ চার্জ বা আইইউসি চার্জ কি এবং কেন? আসলে একটি টেলিকম নেটওয়ার্ক থেকে দ্বিতীয় নেটওয়ার্কে কল করার জন্য ট্রাই নির্ধারিত একটি চার্জ দ্বিতীয় কোম্পানিকে দিতে হয় । যে নেটওয়ার্ক থেকে অন্য নেটওয়ার্কে আউটগোয়িং কল করা হয় তাকে অন্য নেটওয়ার্কে এই আইইউসি ফি দিতে হয়। উদাহরণস্বরূপ, এয়ারটেল গ্রাহক যদি কোনও জিও গ্রাহককে কল করে থাকেন তবে এয়ারটেল এর জন্য জিওকে একটি আইইউসি চার্জ দেবে। একই সাথে, জিও ব্যবহারকারীর কাছ থেকে এয়ারটেলের নম্বরে আউটগোয়িং কল আসার ক্ষেত্রেও জিও এয়ারটেলকে আইইউসি চার্জ দেবে।
আপনি যদি জিও গ্রাহক হোন তাহলে হয়তো এখন থেকে ৬ পয়সা প্রতি মিনিট হিসাবে দিতে শুরু করেছেন। তবে জিও আসার দিন থেকেই আপনার থেকে অতিরিক্ত কিছু না নিয়েই অন্য কোম্পানিকে আইইউসি চার্জ মেটাচ্ছিলো। এমনকি প্রথমদিকে এই চার্জ ১৪ পয়সা প্রতি মিনিটের হিসাবে দিতে হতো। পরে তা কমিয়ে ৬ পয়সা করা হয়। জিও মনে করেছিল ২০১৯ সাল শেষ হতেই ট্রাই এই ৬ পয়সাও উঠিয়ে দিয়ে শূন্য করে দেবে। তবে এমনটা এইমুহূর্তে হওয়া সম্ভব নয়। যার প্রথম কারণ হলো এখনো দেশে ২জি গ্রাহকের সংখ্যা কম নয়, ফলে যে কোম্পানির ২জি পরিষেবা নেই সে বেশি সুবিধা পাবে। আর দ্বিতীয় কারণ হলো কোম্পানিগুলোর যা আর্থিক অবস্থা তাতে আইইউসি চার্জ পেলে কিছুটা রক্ষা পাবে।
ট্রাই ও চাইছে আইইউসি চার্জ থাকুক :
আইইউসি চার্জ কে কেন্দ্র করে যখন টেলিকম কোম্পানিগুলো দুইভাগে বিভিক্ত তখন এদের মধ্যে মধ্যস্থতা করতে ট্রাই একটি বৈঠক ডাকে। সেখানে জিও আইইউসি চার্জ তুলে দেওয়ার দাবি জানায়। যদিও এয়ারটেল ও ভোডাফোন আরো তিনবছর আইইউসি চার্জ রাখার পক্ষে সওয়াল করে। রিপোর্ট অনুযায়ী বৈঠকেও সমাধানসূত্র না বার হয়ে আসায় ট্রাই নিজে থেকে আরো ২ বছর আইইউসি চার্জ চালু রাখতে পারে। আর তা যদি হয় তাহলে ভোডাফোন ও এয়ারটেল ট্রাইয়ের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাবে বলে রিপোর্টে বলা হয়েছে। কারণ জিওর কাছে যেহেতু বেশি সংখ্যক গ্রাহক আছে তাই সম্ভাবনা বেশি অন্য নেটওয়ার্কে কল ও বেশি হবে। ফলে এই দুই কোম্পানি মোটা টাকা লাভ করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here