টেলিকম কোম্পানি Airtel আগামী ডিসেম্বর মাস থেকে তাদের নতুন পরিষেবা ভয়েস ওভার ওয়াই-ফাই (VoWiFi) চালু করছে। এই পরিষেবার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ঘরের মধ্যে থাকলেও ভয়েস কলিংয়ের সময়ও কোনো সমস্যায় পড়বে না। কোম্পানি এই সার্ভিস আনার আগে তাদের কর্মচারীদের মধ্যে এটিকে টেস্ট করে। এয়ারটেলের এই পদক্ষেপ টেলিকম বাজারে একটি বড়ো পরিবর্তন আনতে পারে। আসুন জেনে নিয়ে Airtel VoWiFi সার্ভিস আসলে কি কি ?
Airtel VoWiFi সার্ভিস :
এই পরিষেবার মাধ্যমে এয়ারটেল ব্যবহারকারীরা ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ওয়াই-ফাই কলিং করতে সক্ষম হবেন। এর জন্য ব্যবহারকারীর অবশ্যই একটি ওয়াই-ফাই কলিং সক্ষম হ্যান্ডসেট থাকতে হবে। ET এর একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে যে কোম্পানি তার কর্মচারী এবং নির্বাচিত গ্রাহকদের নিয়ে ভোওয়াই-ফাইয়ের বিটা পরীক্ষা শেষ করেছে। এই পরীক্ষায় দেখা গেছে সাধারণ ভাবে যেসমস্ত জায়গায় কলের সময় সমস্যা হয়, VoWiFi এর মাধ্যমে কল করলে সে সমস্যা হচ্ছেনা।
ভোওয়াই-ফাইয় ব্যবহার করে WhatsApp, hike এবং WeChat এর মতো অ্যাপের সাহায্যে ভয়েস কল করা যাবে। রিপোর্টে বলা বলছে এয়ারটেল তাদের এই নতুন পরিষেবার জন্য কোনো অতিরিক্ত চার্জ নেবে না। এরজন্য আলাদা কোনো অ্যাপও বানানো হয়নি। সাথে কোনো নতুন নম্বর ও নেওয়ার প্রয়োজন নেই। ব্যবহারকারীরা কেবলমাত্র একটি Wi-Fi সংযোগের মাধ্যমে তাদের বাড়ি থেকে কল করতে সক্ষম হবেন।
এদিকে এয়ারটেল গ্রাহকদের সুবিধার্থে কিউ রিচার্জ পরিষেবা ও চালু করেছে। কিউ রিচার্জের এর অর্থ হ’ল ব্যবহারকারীরা তাদের বর্তমান প্রিপেড প্ল্যানের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই সেই প্ল্যানটি রিচার্জ করতে পারেন। এরফলে যখন বর্তমান প্ল্যানটি শেষ হয়ে যাবে তখন কিউ রিচার্জটি অটোমেটিক চালু হয়ে যাবে। আপনি একসাথে অনেকগুলো কিউ রিচার্জ করতে পারেন। প্রসঙ্গত ১ ডিসেম্বর থেকে এয়ারটেল প্ল্যানের দাম বাড়াবে বলে ঘোষণা করেছে। এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি পুরানো দামেই পরিষেবা চালিয়ে যেতে চান তাহলে কিউ রিচার্জ একটি ভালো বিকল্প।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here