এবছরে বাজেট রেঞ্জে অনেক স্মার্টফোন লঞ্চ হয়েছে। রেডমি, রিয়েলমি থেকে শুরু করে অন্যান্য স্মার্টফোন কোম্পানি ফ্ল্যাগশিপ ফোন নিয়ে আনলেও, বাজেট রেঞ্জে কম স্মার্টফোন আনেনি। এবছরের ফোনগুলোর দুটি বিশেষ ফিচার হলো ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে ও বেশি সংখ্যক ক্যামেরা সেটআপ। উইখন খুব কম দামেই চারটি রিয়ার ক্যামেরা যুক্ত ফোন ভারতে উপলব্ধ। এই অবস্থায় আপনার বাজেট যদি ১০,০০০ টাকা হয় তাহলে কোন ফোনটি আপনার জন্য ভালো আসুন জেনে নিই।
Redmi Note 8 : দাম শুরু ৯,৯৯৯ টাকা থেকে 
রেডমি নোট ৮ ফোনটি বড় ৬.৩৯ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে সঙ্গে লঞ্চ হয়েছে। যার আসপেক্ট রেশিও ১৯.৫:৯ এবং স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৯০% । ডিসপ্লের সামনে ও পিছনে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রটেকশনে রয়েছে। প্রসেসর এর কথা বললে এতে পাবেন কোয়ালকম স্নাপড্রাগণ ৬৬৫ প্রসেসর। ফোনটি চারটি রিয়ার ক্যামেরা সঙ্গে এসেছে। যার প্রাইমারি সেনসর সনি আইএমএক্স ৫৮৬ এর সঙ্গে ৪৮ মেগাপিক্সেল। প্রাইমারি ক্যামেরার অ্যাপারচার এফ/১.৭৫। অন্যান্য ক্যামেরা গুলি হল ৮ মেগাপিক্সেলের ১২০ ডিগ্ৰী wide-angle সেন্সর, ২ মেগাপিক্সেলের ডেপ্থ সেন্সর এবং ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স।
সেলফির জন্য এই ফোনে এফ/২.০ অ্যাপারচারের সাথে ১৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে। শাওমি রেডমি নোট ৮ ফোনটি ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারির সাথে লাঞ্চ হয়েছে। যার সাথে ১৮ওয়াট চার্জার সাপোর্ট করবে। কানেকটিভিটির জন্য এই ফোনে পাবেন ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট, ৩.৫এমএম হেডফোন জ্যাক, ফোরজি ভোল্টি ও ওয়াইফাই।
Realme 5s : দাম শুরু হয়েছে ৯,৯৯৯ টাকা থেকে 
রিয়েলমির এই ফোনে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে আছে। যার রেজুলেশন ৭২০ x ১৬০০ পিক্সেল এবং স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮৯ শতাংশ। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য কর্নিং গরিলা গ্লাস ৩ প্লাস প্রটেকশন। এই ফোনে ২.০ গিগাহার্টজ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫ প্রসেসর দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও এই ফোনে ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ আছে।
ফটোগ্রাফির জন্য এই ফোনে কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। যার প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৮ অ্যাপারচার ৪৮ মেগাপিক্সেল। এছাড়াও এতে আছে ৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেল পোর্ট্রেট লেন্স। এই ফোনের সামনে ১৩ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা আছে। এই ফোনে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি পাবেন। এই ব্যাটারি একবার চার্জ করলে ১২ ঘন্টা ভিডিও দেখা যাবে।
Vivo U10 : দাম ৮,৯৯০ টাকা 
ভিভো ইউ১০ ফোনে ৬.৩৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। ওয়াটারড্রপ নচের ফিচারের এই ডিসপ্লের স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮৯ শতাংশ এবং স্ক্রিন রেজুলেশন ৭২০ x ১৫৪৪ পিক্সেল। ফোনটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫ প্রসেসর, ৪ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম ও ৬৪ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ আছে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবে।
ফটোগ্রাফির জন্য এর পিছনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। যার প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/২.২ অ্যাপারচারের সাথে ১৩ মেগাপিক্সেল, সেকেন্ডারি ক্যামেরা ১২০ ডিগ্রী সুপার ওয়াইড এঙ্গেলের সাথে ৮ মেগাপিক্সেল এবং তৃতীয় ক্যামেরাটি হলো এফ/২.৪ অ্যাপারচারের সাথে ২ মেগাপিক্সেল। সেলফির জন্য এই ফোনে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে। আগেই বলেছি এই ফোনে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে, যা ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।
Samsung Galaxy M30 : দাম শুরু ৯,৯৯৯ টাকা থেকে 
Samsung Galaxy M30 তে পাওয়া যাবে একটি ৬.৩৮ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড ইনফিনিটি U ডিসপ্লে। এটির স্ক্রিন রেজল্যুশন হবে ১০৮০×২২২০ পিক্সেল। ফোনটিকে প্রায় বেজেললেসই বলা চলে। এই ফোনে আছে ৩জিবি / ৪জিবি/ ৬জিবি র‌্যাম এবং ৩২জিবি/ ৬৪ জিবি/ ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। ফোনটি চলে স্যামসাং এর নিজস্ব এক্সিনোস ৭৯০৪ অক্টা-কোর প্রসেসরের দ্বারা। এই ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৮.০ ওরিও এবং সাথে স্যামসাংয়ের এক্সপিরিয়েন্স ইউআই দেওয়া হয়েছে।
এছাড়া ফোনটিতে আছে একটি ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রধান ক্যামেরাটি ১৩ মেগাপিক্সেলের (f/১.৯), দ্বিতীয়টি ৫ মেগাপিক্সেলের(f/২.২) এবং তৃতীয়টি ৫ মেগাপিক্সেলের (f/২.২) । মনে করা হচ্ছে তৃতীয় লেন্সটি হবে একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স। এছাড়াও সামনে একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের (f/২.০) সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। ফোনটিতে আছে একটি ৫০০০ এমএএইচ এর বিশাল ব্যাটারি যা ১৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ।
 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here