টেলিকম কোম্পানি এয়ারটেল আনুষ্ঠানিকভাবে দিল্লি এনসিআর সার্কেলে তাদের VoWi-Fi বা ভয়েস ওভার ওয়াই-ফাই পরিষেবা চালু করলো। কয়েক মাস আগেই কোম্পানির তরফে জানানো হয়েছিল তাদের এই নতুন পরিষেবা বেশ কয়েকটি বড়ো বড়ো শহরে উপলব্ধ করা হবে। আপাতত কোম্পানি এটিকে একটি সার্কলে চালু করেছে, তবে শীঘ্রই অন্যান্য সার্কলেও ভয়েস ওভার ওয়াই-ফাই পরিষেবা পাওয়া যাবে।
এয়ারটেল VoWi-Fi পরিষেবাটির নাম দেওয়া হয়েছে এয়ারটেল ওয়াই-ফাই কলিং। আপাতত এয়ারটেলের এই পরিষেবাটি চারটি স্মার্টফোন সংস্থার ২৪টি স্মার্টফোনে ব্যবহার করা যাচ্ছে । এই চারটি কোম্পানি হলো অ্যাপল, স্যামসাং, শাওমি এবং ওয়ানপ্লাস। আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, রিলায়েন্স জিও ও আইফোন ১১ প্রো ব্যবহারকারীদের জন্য ভোই-ফাই পরিষেবাও নিয়ে এসেছে।
এই ফোনগুলোতে সাপোর্ট করবে :
এয়ারটেলের ওয়াই-ফাই কলিং পরিষেবা ওয়ানপ্লাস ৭ সিরিজ, অ্যাপল আইফোন ১১ সিরিজ, স্যামসাং ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন এবং শাওমির রেডমি কে২০ সিরিজের ফোনে পাওয়া যাবে।
Airtel VoWiFi সার্ভিস কি :
এই পরিষেবার মাধ্যমে এয়ারটেল ব্যবহারকারীরা ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ওয়াই-ফাই কলিং করতে সক্ষম হবেন। এর জন্য ব্যবহারকারীর অবশ্যই উপরে উল্লেখিত ওয়াই-ফাই কলিং সক্ষম হ্যান্ডসেট থাকতে হবে। ET এর একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে যে কোম্পানি বিভিন্ন শহরে তার কর্মচারী এবং নির্বাচিত গ্রাহকদের নিয়ে ভোওয়াই-ফাইয়ের বিটা পরীক্ষা শেষ করেছে। এই পরীক্ষায় দেখা গেছে সাধারণ ভাবে যেসমস্ত জায়গায় কলের সময় সমস্যা হয়, VoWiFi এর মাধ্যমে কল করলে সে সমস্যা হচ্ছেনা।
ভোওয়াই-ফাইয় ব্যবহার করে WhatsApp, hike এবং WeChat এর মতো অ্যাপের সাহায্যে ভয়েস কল করা যাবে। রিপোর্টে বলা বলছে এয়ারটেল তাদের এই নতুন পরিষেবার জন্য কোনো অতিরিক্ত চার্জ নেবে না। এরজন্য আলাদা কোনো অ্যাপও বানানো হয়নি। সাথে কোনো নতুন নম্বর ও নেওয়ার প্রয়োজন নেই। ব্যবহারকারীরা কেবলমাত্র একটি Wi-Fi সংযোগের মাধ্যমে তাদের বাড়ি থেকে কল করতে সক্ষম হবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here