ডিসেম্বর থেকেই বেসরকারি টেলিকম কোম্পানিগুলো নতুন ট্যারিফ প্ল্যান নিয়ে এসেছে। আগে যেখানে ডেটা ও কলিং পরিষেবা অনেক কম মূল্যেই পেত গ্রাহকরা, আচমকাই তার দাম বাড়িয়েছে কোম্পানিগুলো। আগের সমস্ত সুবিধা পেতে গেলে গ্রাহককে এখন ১.৫ গুন বেশি খরচ করতে হবে। যেকারণে কিছু গ্রাহক নম্বর পোর্ট করছে তো কেউ সস্তা প্ল্যান রিচার্জ করছে। যদিও এই পরিবর্তন এসেছে কেবল প্রিপেড প্ল্যানে। পোস্টপেড প্ল্যানে কিন্তু পরিবর্তন আনেনি টেলিকম কোম্পানিগুলো।
যারপরেই দেখা গেছে Airtel ওয়েবসাইটের ডেটা অনুযায়ী, ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত গত সাতদিনে প্রায় ২০,০০০ Postpaid কানেকশন অনলাইনে কেনা হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে প্রিপেড প্ল্যানের দাম বৃদ্ধির কারণেই মানুষ পোস্টপেড প্ল্যান বেছে নিচ্ছে। আসুন দেখে নিই এয়ারটেলের এমনই একটি পোস্টপেড প্ল্যান যেটি প্রিপেড প্ল্যানের থেকেও বেশি সুবিধা দেয়।
দৈনিক ডেটা লিমিট নেই :
এয়ারটেল প্রিপেড ও পোস্টপেড উভয় কানেকশনে আনলিমিটেড কলিং এর সুবিধা দেয়। তবে পোস্টপেড কানেকশনে সুবিধা হলো এখানে দৈনিক কোনো ডেটা লিমিট নেই। এয়ারটেল তাদের প্রিপেড প্ল্যানে রোজ ১ জিবি, ১.৫ জিবি অথবা ২ জিবি ডেটা দেয়। এর অর্থ আপনি কোনো মুভি বা বেশ কয়েকটি ভিডিও দেখতে দেখতেই দৈনিক ডেটা শেষ হয়ে যায়। তবে পোস্টপেড প্ল্যানে এই অসুবিধা নেই। এয়ারটেলের সবচেয়ে সস্তা পোস্টপেড প্ল্যান হলো ৪৯৯ টাকা। এখানে ৭৫ জিবি ডেটা দেওয়া হয়।
অন্যান্য সুবিধা : 
ডেটা ও কলিং ছাড়াও পোস্টপেড প্ল্যানে অন্যান্য সুবিধা ও দেওয়া হয়ে থাকে। যার মধ্যে গ্রাহকরা নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম ও ZEE5 সাবস্ক্রিপশন পাবে। এর মধ্যে তিন মাস পাওয়া যাবে Netflix ও Amazon Prime সাবস্ক্রিপশন এবং একবছরের জন্য ZEE5 সাবস্ক্রিপশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here