কোরিয়ান কোম্পানি স্যামসাং গতবছর ৪ লাখের বেশি ফোল্ডিং ফোন বিক্রি করেছে। এছাড়াও কোম্পানির মোবাইল ব্যবসার প্রধান জানিয়েছেন, সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত ১০ লক্ষ Galaxy Fold বিক্রির খবর সম্পূর্ণ মিথ্যা। কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো ২০২০ তে বক্তৃতা দিতে উঠে কোম্পানির সিইও, Koh Dong-jin বলেন, ‘ আমরা গতবছর ৪,০০,০০০-৫,০০,০০০ ফোল্ডিং ফোন বিক্রি করেছি।
Samsung Galaxy Fold দাম :
ভারতে গ্যালাক্সি ফোল্ডের দাম রাখা হয়েছে ১,৬৪,৯৯৯ টাকা। এই দাম ফোনটির ১২ জিবি র‍্যাম ও ৫১২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। এই ফোনটি কালো রংয়ে পাওয়া যাবে। আগ্রহী ক্রেতারা স্যামসাংয়ের অফিসিয়াল অনলাইন ই-স্টোর, Samsung Opera House এবং ৩১৫টি রিটেইল আউটলেট থেকে কিনতে পারবেন।

এই ফোনে ৭.৩ ইঞ্চি ইনফিনিটি ফ্লেক্স ডিসপ্লে দেওয়া হবে যার ৪.২:৩। ফোনটিকে ফোল্ড করার পর ৪.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে দেখা যাবে,যার আসপেক্ট রেশিও ২১:৯। ফোনটিতে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ প্রসেসর থাকবে। ফলে এই ফোনে ফাইভজি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করবে। ফোনটিতে ১২ জিবি র‍্যাম ও ৫১২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ দেওয়া হবে।
এই ফোনে অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে আছে অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই। ক্যামেরার কথা বললে ফোনটির ভিতর দিকে এফ/২.২ অ্যাপারচারের সাথে ১০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা থাকবে এছাড়াও ৮ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি ক্যামেরা দেওয়া হবে। সেলফির জন্য এই ফোনে পাবেন এফ/২.২ অ্যাপারচারের সাথে ১০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।
এছাড়াও ফোনের বাইরের ডিসপ্লে বা বড়ো ডিসপ্লের সাথে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা থাকবে। যেখানে থাকবে ১২ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা, এফ/২.২ অ্যাপারচারের সাথে ১৬ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা, ও এফ/২.৪ অ্যাপারচারের সাথে ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফোটো ক্যামেরা।এই ফোনে পাবেন ৪৮৩০ এমএএইচ ব্যাটারি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here