ডেমোন মোটরসাইকেল কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো (CES 2020) তে তাদের হাইপারস্পোর্ট ইলেকট্রিক সুপারবাইক লঞ্চ করলো। অত্যাধুনিক টেকনোলজি ব্যবহারের জন্য এই বাইকটি সিইএস ২০২০ ইনোভেশন পুরষ্কার ও পেয়েছে। এই ইলেকট্রিক বাইকে সেফটি টেকনোলজি, ইউনিক রাইড-পজিশন সিস্টেমের মতো অনেক উন্নত ফিচার ব্যবহার করা হয়েছে।
স্টাইলিশ এবং পাওয়ারফুল বাইক :
এই সুপার বাইকের ডিজাইন আপনার মন কাড়তে বাধ্য। বাইকটি একবার চার্জে ২০০ মাইল (৩২০ কিমি) এর বেশি চলবে।এমনকি হাইওয়ে এবং সিটি, দুইজায়গাতেই বাইকটি এই পথ চলতে সক্ষম। এর সর্বোচ্চ গতিবেগ ২০০ মাইল প্রতি ঘন্টায় (৩২০ কিমি / ঘন্টা)। এটি ২০০এইচপি পাওয়ার এবং ২০০এনএম টর্ক জেনারেট করে। কোম্পানির দাবি অনুযায়ী, বাইকটি ০ থেকে ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতি পেতে ৩ সেকেন্ডেরও কম সময় নেয়।
৩ ঘন্টায় ফুল চার্জ :
এই বাইকটি লেভেল ২ চার্জার দিয়ে ৩ ঘন্টার মধ্যে ফুল চার্জ হয়ে যায়। ডেমোন বাইকটির দুটি ভ্যারিয়েন্ট লঞ্চ করেছে। প্রথমটি হাইপারস্পোর্ট এইচএস এবং দ্বিতীয়টি হাইপারস্পোর্ট প্রিমিয়ার। প্রিমিয়ার সংস্করণে কার্বন ফাইবার সুইংআর্মস, ব্রেম্বো ব্রেক  রয়েছে। কোম্পানি জানিয়েছে দাম বেশি হওয়ার কারণে প্রিমিয়াম বাইকটি কেবল ২৫ ইউনিট তৈরি করা হবে। ইতিমধ্যেই এর বুকিং ও শুরু হয়ে গেছে। এইচএস ভ্যারিয়েন্টের জন্য গ্রাহকদের ১০০ ডলার (প্রায় ৭,০০০ টাকা) এবং প্রিমিয়ামের জন্য ১,০০০ ডলার (প্রায় ৭০,০০০ টাকা) দিতে হবে।
হাইপারস্পোর্ট ইলেকট্রিক সুপারবাইক স্পেসিফিকেশন :
এতে স্পিডোমিটারের পরিবর্তে একটি বড় স্ক্রিন দেওয়া হয়েছে, যেখানে বাইকের সাথে যুক্ত সমস্ত তথ্য দেখা যাবে। বাইকের সামনে এবং পিছনে ফুল এইচডি রেজোলিউশন ক্যামেরা রয়েছে। যার প্রিভিউ স্ক্রিনে দেখা যাবে। এতে ৪জি, ওয়াইফাই, ব্লুটুথ কানেক্টিভিটি উপলব্ধ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here