মোবাইলের ব্যাটারি নিয়ে এই ভুল ধারণা আপনার ও আছে

0
2372

সারাবিশ্বে দ্রুত বাড়ছে মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা। স্মার্টফোন কোম্পানিগুলি নিত্যনতুন ফিচারের সাথে বাজারে নতুন নতুন ফোন নিয়ে আসছে। এখন ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা থেকে শুরু করে পাঞ্চ হোল ডিজাইনের ডিসপ্লে সব কিছু ফোনেই পেয়ে যাই। কিন্তু এরপরও প্রায় সমস্ত ফোনের ব্যাটারি আমাদের কাছে চিন্তার বিষয়। কারণ ফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়াবে এমন প্রযুক্তি খুব একটা উন্নতি করতে পারেনি। এদিকে ফোনের ব্যাটারি সম্পর্কে আমাদের মনে অনেক ভুল ধারণাও কাজ করে। আজ আমরা সেই সমস্ত ভুল ধারণাগুলি নিয়ে কথা বলবো।
ওভার চার্জিংয়ে ফোনের ব্যাটারির ক্ষতি হয় :
সাধারণভাবে আমরা বিশ্বাস করি যে, ওভার চার্জিংয়ে ফোনে ব্যাটারির ক্ষতি হয়। এমনকি ওভার চার্জিংয়ে ফোনের ব্যাটারি ব্লাস্ট করার ও কথাও শুনে থাকি। তবে একথা সঠিক নয়। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ফোনে এখন এমন একটি সিস্টেম ব্যবহার করা হয়, যেটি ফোনকে ১০০ শতাংশ চার্জ হওয়ার পর ইলেক্ট্রিসিটি থেকে ডিসকানেক্ট করে দেয়। ফলে আপনার ব্যাটারির কোনো ক্ষতি হয়না।
ব্যাটারি পুরো শেষ হওয়ার পর চার্জ দেওয়া উচিত :
আমরা বিশ্বাস করি যে ব্যাটারি পুরো শেষ হওয়ার পর আবার চার্জে বসানো ভালো। কিন্তু আপনাকে বলে রাখি এখনকার দিনের লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক চার্জার সাইকেলের সাথে আসে (১০০-০)। অর্থাৎ আপনি ফোনটিকে চার্জ করার জন্য ১০০ টি ধাপ পাবেন। এবার আপনি যদি চান ১০০ ধাপ শেষ করেই চার্জ করবেন, তাহলে তা করতে পারেন। আবার আপনি যদি চার্জ কিছু বাকি থাকতেই চার্জ দেব, সেটাও করতে পারেন।
চার্জ দেওয়ার সময় ফোন ব্যবহার করা উচিত নয় :
হ্যাঁ একথা সত্যি যে চার্জে বসিয়ে ফোন না ঘাটাই ভালো। তাতে চার্জ দ্রুত হয়। তবে চার্জে বসিয়েও আপনি ফোন ব্যবহার করতে পারেন। যদি না আপনার ফোনের ব্যাটারির কোনো সমস্যা থাকে। কারণ চার্জে দেওয়া অবস্থায় ফোন ব্যবহার করলে, ফোনটি গরম হয়ে ওঠার ভয় থাকে। কিন্তু ফোনটি অতিরিক্ত গরম হওয়ার অর্থ, আপনার ফোনের ব্যাটারিতে উৎপাদনগত ত্রুটি আছে।
অ্যাপকে কিল করলে ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়বে :
এটা একদম ভুল ধারণা। অ্যাপকে কিল করলে এবং পুনরায় রিস্টার্ট করলে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ মোটেও বাড়ে না। বরং আরও কমে। কারণ অ্যাপটি পুনরায় চালু হওয়ার জন্য বেশি ব্যাটারি নিয়ে নেয়। বরং আপনি কোনো অ্যাপের ব্যাকগ্রাউন্ডে চলা কে বন্ধ করে রাখতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here